SLIDER

Navigation-Menus (Do Not Edit Here!)

স্তন ক্যান্সারের বিষয়ে যে তথ্যগুলো জানা দরকার

আমরা ব্রেস্ট ক্যান্সার নিয়ে অনেক কথাই শুনেছি বিশেষ করে অক্টোবর মাসে, কারণ অক্টোবর মাস হচ্ছে ‘ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতার মাস’। কিন্তু আমরা আসলেই কতটুকু জানি এই রোগটি সম্পর্কে? ব্রেস্ট ক্যান্সার আপনার পরিবারের থেকে আসতে পারে কিন্তু বেশির ভাগ মানুষের ব্রেস্ট ক্যান্সার তার পারিবারিক সূত্রে হয়না। ব্রেস্ট ক্যান্সার নিয়ে কাল্পনিক কিছু কথা আছে যেমন, এটা শুধুমাত্র বয়স্কদের হয় বা যাদের পারিবারিক ইতিহাসে আছে তাঁদের হয়।

Dubin Breast Center  এর ডাইরেক্টর ও সার্জন এবং ‘The New generation Breast Cancer Book’ এর রচয়িতা Dr.Port, Huffington post কে স্তন ক্যান্সারের বিষয়ে কিছু কথা বলেছেন – স্তন ক্যান্সারের চিকিৎসা ও যত্ন নেয়া বেশ জটিল, এই জটিল হওয়ার কারণ হচ্ছে, আমাদের অনেক রকমের অভিরুচি। Dr.Port বলেন, ‘যা একজনের জন্য মানানসই তা অন্য আরেকজনের জন্য মানানসই নাও হতে পারে’। যখন কেউ এই রোগে আক্রান্ত হন তখন একেক জন একেক রকম পরামর্শ দেয়া শুরু করেন। ‘কিন্তু আপনার জন্য কোনটা সঠিক তাই হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ’। তার মতে দিনে দিনে ব্রেস্ট ক্যান্সার অনেক জটিল হচ্ছে তাই সাধারণ ডাক্তারের কাছে না গিয়ে একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে যাওয়া ভালো। সবসময় ইতিবাচক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।
Los Angeles এর Tower Hematology/Oncology Group এর medical oncologist,   MDPhilomena McAndrew কিছু পরামর্শ দিয়েছেন, আসুন জেনে নেই সেগুলো-
১। ১৫-৩৪ বছর বয়সের মেয়েদের ব্রেস্ট ক্যান্সার হয়ে মারা যাওয়ার ঝুঁকি বেশি। যখনই আপনার স্তনে কোন পরিবর্তন লক্ষ করবেন তখনই ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন।
২। কম বয়সের কারণে যদি আপনার পরিবার বা ডাক্তার আপনাকে গুরুত্ব না দেন তাহলেও যদি আপনার কাছে সমস্যা মনে হয় তাহলে বিষয়টাকে নিজে গুরুত্ব সহকারে নিন এবং অন্যদের বুঝিয়ে বলুন। কখনোই নিজে হাল ছেড়ে দেবেন না।
৩। অন্যান্য ক্যান্সারের মত ব্রেস্ট ক্যান্সারের চিকিৎসা খুব দ্রুত শুরু করতে হয়না। ভালোভাবে খোঁজ নিয়ে যার কাছে চিকিৎসা নিতে আপনি স্বস্তি বোধ করবেন সেই ডাক্তারের কাছে যান এবং ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে চিকিৎসার ধাপ গুলো এবং আপনার রিস্ক কতটুকু ও কোন ষ্টেজে আছেন তা জেনে নিন।

এছাড়াও নিয়মিত ৩০ মিনিত ঘাম ঝরানোর ব্যায়াম করলে ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি ৩০-৪০% কমে। কিছু ক্ষেত্রে ব্রেস্টে ক্যান্সার খুব দ্রুত বৃদ্ধি পায় এবং ছড়ায় ও দ্রুত। এক্ষেত্রে মেমোগ্রামেও ভাল ভাবে টিউমার সনাক্ত করা যায়না। এক্ষেত্রে ডাক্তারের সাথে কথা বলুন। আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করুন। কারণ ফ্যাট সেল ইস্ট্রোজেন উৎপন্ন করে যা ক্যান্সারের বৃদ্ধি ঘটায়।

Pages