SLIDER

Navigation-Menus (Do Not Edit Here!)

শিশুদের সঠিক মানসিক বিকাশের জন্য তার সঙ্গে যা করবেন না

এক থেকে তিন বছর বয়সী শিশুরা আপনার জন্য উপভোগ্য কিছু সময় নিয়ে আসবে। এ বয়সী শিশুদের শেখার গতিও বেশ দ্রুত। যতই তারা নতুন নতুন বিষয় শিখতে থাকবে, ততই তাদের মধ্যে বেশ কিছু নেতিবাচক আচরণ দেখা যাবে।
এসব আচরণ সামল দেওয়ার জন্য সতর্ক হতে হবে আপনাকেও। এমন অনেক আচরণই আছে যা অভিভাবকদের ক্ষেত্রে সংকটের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। এ লেখায় এমন ছয়টি আচরণের কথা উল্লেখ করা হলো।
১. মনোযোগ না দেওয়া :

ঘ্যানঘ্যান করা শিশুদের রাগ ও হতাশা প্রকাশের উপায়- জানান নিউ ইয়র্কের বার্নার্ড কলেজ সেন্টার ফর টডলার ডেভেলপমেন্টের পরিচালক ড. টোভা পি ক্লেইন। শিশুর ঘ্যানঘ্যানের বিপরীতে আপনি বিরক্ত হলে তার আচরণ প্রকট হবে। একে পাত্তা না দিলেও শিশুর আঁতে ঘা লাগবে। নিজের দিকে আপনার খেয়াল না পেলে শিশু এমনটা করতেই থাকবে।
২. বকাঝকা নয় :
এ বয়সের শিশুরা কাঁদবে, হাত-পা ছুড়বে, নিঃশ্বাস আটকে রাখবে এবং নিজেদের মেঝেতে ছুড়ে ফেলবে। ক্লেইন বলেন, এদের মধ্যে সব সময় আবেগের জোয়ার থাকে, যার সঙ্গে আপনি সব সময় পেরে উঠবেন না। ঘুমের অভাবে তাদের মধ্যে ক্রোধ জন্মে। এ ক্ষেত্রে কৌশল হলো- তাকে মানুষের ভিড়ে নিয়ে যান, ঠাণ্ডা হয়ে যাবে। বকাবকি না করে তাকে বুকে জড়িয়ে নিন।
৩. শিশুকে নিজের মতো থাকতে না দেওয়া :
‘নো ব্যাড কিডস : টডলার ডিসিপ্লিন উইদাউট শেম’ বইয়ের লেখক জ্যানেট ল্যান্সবিউরি জানান, ভালো বা মন্দ, সব কিছুতে ‘না’ বলার প্রবণতা থাকে শিশুদের। এর মাধ্যমে তারা বোঝাতে চায় যে ‘আমি আমার মতো চলতে চাই’। প্রত্যেক মানুষই কিছু সময় বা কাজ নিজের মতো করে করতে চায়। শিশুরাও ব্যতিক্রম নয়। কাজেই তাকে কিছুক্ষণ নিজের মতো থাকার সুযোগ দিন।
৪. সব কাজে ‘না’ নয় :
পছন্দের খেলনা দেখামাত্র শিশুরা তা চাইতে পারে। এ অবস্থায় নেতিবাচক পরিস্থিতির শিকার হলে তার জেদ বেড়ে যায়। এ ধরনের জেদের প্রকাশ ঘটে ধাক্কা, লাথি বা কামড়ের মাধ্যমে। এসব ক্ষেত্রে সংযত হোন। যেমন- সে যদি তার পুতুলে লাথি দিয়ে রাগ কমাতে চায়, তাহলে মানা করবেন না।
৫. ধৈর্যের অভাব :
শিশুদের মস্তিষ্কে অপেক্ষার বিষয়টি থাকে না। চাওয়ামাত্রই সব চলে আসবে বলে মনে করে তারা। কিছুটা সময় নিয়ে তার হাতে প্রিয় জিনিসটি তুলে দিন। তবে খুব বেশি দেরি করবেন না। এতে সে তৃপ্ত হবে। কোনো জিনিস চোখের পলকে দেওয়া সম্ভব হলেও, কয়েক মিনিট দেরি করুন।

৬. অভদ্র আচরণ নয় :
শিশুর মুখ থেকে ‘প্লিজ’ ও ‘থ্যাংক ইউ’ শব্দ দুটি শুনতে কাঠখড় পোড়াতে হবে। তবে চেষ্টা চালাতে থাকুন। যে বোধ থেকে এসব বলা হয়, তা অনেক পরে শিশুদের মধ্যে প্রবেশ করে। তার নম্র-ভদ্র আচরণ গড়ে উঠবে আপনার ও পরিবারের অন্যদের আচরণ দেখে। এ জন্য শিশুর সামনে অন্যদের সঙ্গে কখনোই অভদ্র আচরণ করবেন না।

Pages