SLIDER

Navigation-Menus (Do Not Edit Here!)

সঙ্গী পরকীয়া করছে কিনা বুঝার উপায় কি?

ইদানীং পরকীয়া একটি সামাজিক ব্যাধির আকার ধারণ করেছে। জীবনসঙ্গীকে বৈবাহিক সম্পর্কের প্রথম দিককার মতো করে পছন্দ না করতে পারলে কিংবা জীবনসঙ্গীর প্রতি আকর্ষণ হারিয়ে ফেললে অনেকে ইচ্ছে করেই পরকীয়ায় জড়িয়ে যান। এছাড়াও কিছু শারীরিক ও মানসিক সমস্যার কারণেও অনেকে পরকীয়ার সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন।
একটি সংসার নিমেষে ভেঙে দিতে পারে এই পরকীয়া নামক ঝড়।
যদি একপক্ষ বিয়েতে অনেক বিশ্বস্ত থাকেন তখন অপরপক্ষের এই ধরণের কর্মকাণ্ড সত্যিকার অর্থেই অনেক বেদনাদায়ক হয়ে উঠে। সম্পর্কের ওপর থেকে বিশ্বাস একেবারে নষ্ট হয়ে যায়। অনেকে আছেন যারা বুঝতেই পারেন না তার সঙ্গী পরকীয়ায় লিপ্ত। পরবর্তীতে হুট করে যখন সত্য প্রকাশ পেয়ে যায়, তখন মানসিকভাবে প্রচণ্ড বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন। কিন্তু আপনার সঙ্গী পরকীয়ায় লিপ্ত কিনা তা বোঝার কিছু উপায় রয়েছে। সাইকোথেরাপিস্ট এবং এওএল এক্সপার্ট স্টেসি কাইজার তার একটি বিবৃতিতে সঙ্গীর পরকীয়ায় জড়িয়ে যাওয়ার কিছু লক্ষণ সম্পর্কে ধারণা দেন। চলুন তবে দেখে নেয়া যাক সাইকোথেরাপিস্টের মতে সেই লক্ষণগুলো।
(১) অনেকটা সময় ধরে মোবাইল ফোন বন্ধ থাকা কিংবা বেশীরভাগ সময় ওয়েটিং পাওয়া
লক্ষ্য করে দেখুন তো আপনার সঙ্গীর মোবাইল ফোন কি মাঝে মাঝে বন্ধ পাওয়া যায় অনেকটা সময় ধরে? অথবা আপনি তাকে ফোন দিলে বেশীরভাগ সময় ওয়াটিং পান কিনা খেয়াল রাখুন। যদি এই ধরণের কাজ হরহামেশাই হতে থাকে তাহলে একটু লক্ষ্য রাখুন সঙ্গীর গতিবিধির ওপর। তবে শুধুমাত্র সন্দেহের বশে তার সাথে খারাপ আচরণ করবেন না। প্রথমে দেখে নিন আপনার সন্দেহ সঠিক কিনা।
(২) মোবাইল ও কম্পিউটারের পাসওয়ার্ড লুকোনো কিংবা কিছুদিন পরপর পরিবর্তন করা
আপনার সঙ্গীর মোবাইল ফোনের বা কম্পিউটারের পাসওয়ার্ড কি আপনার জানা? তিনি কি আপনাকে তার এইসকল তথ্য জানিয়ে দেন কিনা দেখুন। অথবা যদি আগে আপনার জানা থাকতো বর্তমানে জানা না থাকলে সেদিকে লক্ষ্য দিন, একটু খতিয়ে ভাবুন। দেখুন, তিনি আপনাকে এইসকল তথ্য নিজে থেকে দেন কিনা। অথবা আপনি চাইলে আপনার সাথে কী ধরণের আচরণ করেন তাও লক্ষ্য করুন।
(৩) আপনি পাশে থাকলে মোবাইল ফোন উল্টো করে রাখা কিংবা বন্ধ করে দেয়া
আপনি তার সাথে থাকলে তিনি তার মোবাইল ফোনটি নিয়ে কী করেন? যদি তিনি স্ক্রিন উল্টো করে রাখেন বা ফোন বন্ধ করে দেন তবে এটা ভেবে নেয়া ঠিক না আপনাদের সময়টা শান্তিতে কাটাবার কারণেই তিনি এই কাজটি করেছেন। এর অর্থ এমনও হতে পারে যে তিনি চান না আপনি এমন কিছু দেখুন যা আপনার মনে সন্দেহের সৃষ্টি করে। তবে সত্যিই তিনি আপনাদের সময়টা শান্তিতে কাটুক সেকারণেই কাজটি করেন কিনা সে ব্যাপারটা আচরণ দেখে বুঝে নিন।
(৪) আপনার সাথে কাটানো সময়ের পরিমাণ ধীরে ধীরে কমিয়ে দেয়া
আপনারা একসাথে কতোটা সময় কাটান একটু ভালো করে ভেবে দেখুন। কাজের চাপে সময় কাটানো হয়ে উঠে না, নাকি এর পেছনে অন্য কোনো কারণ রয়েছে তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন। কারণ আপনার সঙ্গী পরকীয়ায় লিপ্ত থাকলে আপনার সাথে কাটানো সময়ের পরিমাণ ধীরে ধীরে কমে আসবে।

Pages