SLIDER

Navigation-Menus (Do Not Edit Here!)

৩দিন আটকে রেখে গৃহবধূকে লাগাতার গণধর্ষণ

গৃহবধূকে বাসা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ৩দিন আটকে রেখে লাগাতার গণধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় সবুজবাগ থানায় মামলা করেছেন ওই গৃহবধূ।
শুক্রবার বিকালে ওই গৃহবধূকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।
গৃহবধূ জানান, গত মঙ্গলবার রাতে নন্দীপাড়া ১ নম্বর রোডের বাসা থেকে স্থানীয় মেহেদি, খোকন, মনির ও লিটনসহ কয়েকজন অস্ত্রের মুখে তাকে তুলে নিয়ে যায়। ওই এলাকারই একটি বাড়ির তৃতীয় তলায় তাকে আটকে রেখে পালাক্রমে লাগাতার ধর্ষণ করে তারা। গত বৃহস্পতিবার রাতে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। এরপর ওই গৃহবধূ তার স্বামীকে নিয়ে সবুজবাগ থানায় অভিযোগ করেন।
গৃহবধূর স্বামী অভিযোগ করে বলেন, ওই রাতে পুলিশ মামলা না নিয়ে বাসায় পাঠিয়ে দেয়। পরে গতকাল সকালে গেলে অনেক গড়িমসির পর অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা নিয়ে বিকালে তার স্ত্রীকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য ঢামেক হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠিয়েছে। তারা স্বামী-স্ত্রী দুজনই ওমানে ছিলেন। প্রায় ৪ মাস আগে তারা বাংলাদেশে আসেন। ২ মাস ধরে তারা সবুজবাগের নন্দীপাড়া এলাকায় থাকছেন।
তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, সন্ত্রাসীরা তার কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেছিল। চাঁদার টাকা দিতে ব্যর্থ হলে তারা তাকে বেঁধে রেখে তার স্ত্রীকে তুলে নিয়ে গিয়ে ৩দিন আটকে রেখে গণধর্ষণ করে। এ ঘটনায় মুখ খুললে দুর্বৃত্তরা তাদের মেরে ফেলারও হুমকি দেয়।
সবুজবাগ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের ধরতে অভিযান চলছে।

Pages